Register!

ঘরে বসেই লাইভ ভিডিওতে
মাত্র ৩০০০/- টাকায়

লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতি!

ভর্তি হতে কল করুন : 01712-908561

চুরি, বলপূর্বক গ্রহণ, দস্যুতা ও ডাকাতি প্রসঙ্গ

[লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতি, ২০২০]

[ লেখকের নোট : এখানে চুরি, বলপূর্বক গ্রহণ, দস্যুতা ও ডাকাতি সম্পর্কে এখানে নিচের আলোচনাটি আমাদের অনলাইন কনটেন্ট থেকেই তুলে দেওয়া হলো। এর প্রশ্ন-উত্তরগুলো পড়তে পড়তে প্রয়োজনে এই ধারাগুলো দেখে নেবেন। দণ্ডবিধির এই টপিকটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ । বার কাউন্সিলের পরীক্ষায় এখান থেকে দুই রকমের প্রশ্ন এসে থাকে। তবে, তারও বাইরে জুডিসিয়ার পরীক্ষায় একটি প্রবলেম বেজড প্রশ্ন যুক্ত করা আছে [এখানে থাকা ৮ নং প্রশ্নটি]। আশা করি এই অংশের বিন্যাস আপনাদের ভালো লাগবে।ধন্যবাদ, হ্যাপি রিডিং!]

চুরি, বলপূর্বক গ্রহণ, দস্যুতা ও ডাকাতি প্রসঙ্গ

দণ্ডবিধির প্রধান বিষয়বস্তু মনে রাখার ক্ষেত্রে একটি বিষয় মাথায় রাখতে পারেন যে, পুরো দণ্ডবিধি মূলত দুইটি বিষয়কে ঘিরে আবর্তিত হয়েছে। একটি হচ্ছে মানুষের দেহ, আর অন্যটি হচ্ছে মানুষের সম্পত্তি। মানুষের দেহ এবং মানুষের সম্পদ নিয়েই এই দুনিয়ায় যতো খুন-খারাবি আর বিচিত্র প্রকারের অপরাধসমূহ। এই দুইকে কেন্দ্র করেই অপরাধের নানা মাত্রা ঘটতে থাকে সমাজে। মানুষের দেহ সংক্রান্ত অপরাধের বিস্তারিত ছিলো দণ্ডবিধির ১৬তম অধ্যায়ে, যার ব্যপ্তি ছিলো ২৯৯ থেকে ৩৭৭ ধারা পর্যন্ত। আর এর ঠিক পরেই ১৭তম অধ্যায়ে ৩৭৮ থেকে ৪৬২ পর্যন্ত প্রধান প্রধান সম্পত্তি সংক্রান্ত অপরাধসমূহ। আমরা এবার এটাই পড়তে যাচ্ছি।
এই অধ্যায়টির মূল আলোচনা সম্পত্তি সংক্রান্ত অপরাধসমূহ বিষয়ে। সম্পত্তি সংক্রান্ত অপরাধসমূহ সম্পর্কিত বা Of Offences against Property – এই শিরোনামে অনেকগুলো উপশিরোনামে বিভক্ত করে এই অধ্যায় সাজানো আছে মূল আইনে। আলোচনার সুবিধার জন্য সেগুলোকে প্রয়োজন অনুযায়ী ভাগ করে নেবো।

মানুষের সম্পত্তি নিয়ে অনেক অপরাধই ঘটতে পারে। যার সম্পত্তির অভাব আছে সে তা চুরি করতে পারে। চুরিতে না পোষালে ডাকাতি, রাহাজানি ইত্যাদি অনেক কিছুই হতে পারে। সম্পত্তিকে কেন্দ্র করে দলিল জালিয়াতিও হতে পারে। সেটাও একটা অপরাধ। সম্পত্তি নিয়ে প্রতারণা সংঘটিত হতে পারে। অন্যের সম্পত্তির ক্ষতি করা হতে পারে; সেটাও একটা অপরাধ। অন্যের সম্পত্তিতে বা জমিতে অনধিকার প্রবেশও ঘটতে পারে। অপরাধমূলকভাবে বিশ্বাসভঙ্গ করাও সম্পত্তি সম্পর্কিত অপরাধ। যাইহোক এর নানা বিচিত্র বৈশিষ্ট্য এই অধ্যায়ের আলোচ্য।

সম্পত্তি সংক্রান্ত প্রধান ৪টি অপরাধ হলো :
১. চুরি
২. বলপূর্বক গ্রহণ
৩. দস্যুতা
৪. ডাকাতি

প্রথমেই আমরা চুরি সম্পর্কিত [Of Theft] ধারা বুঝবো। ৩৭৮ এর মূল ধারা।

চুরি শুধু অস্থাবর সম্পত্তি হতে পারে; স্থাবর সম্পত্তি চুরি হতে পারে না সাধারণভাবে, তবে ক্ষেত্রবিশেষে হতে পারে। অন্যান্য অপরাধের ক্ষেত্রে যেমন মেনস রিয়া বা দুষ্ট মন বা অসাধু উদ্দেশ্য থাকতে হয়, চুরির ক্ষেত্রেও তার কোনো ব্যতিক্রম নেই। অর্থাৎ অসাধু উদ্দেশ্য থাকতে হবে। দণ্ডবিধির ২২ ধারায় ‘অস্থাবর সম্পত্তি’র সংজ্ঞা দেওয়া আছে আর ২৪ ধারায় ‘অসাধুভাবে’ বিষয়টার সংজ্ঞা দেওয়া আছে।

ধারাটির উদাহরণগুলোর মধ্যেই চমৎকার আলোচনা আছে। ১৬টি উদাহরণে চুরির নানা পারসপেকটিভ নিয়ে আলোচনাগুলো বিশেষ করে যেগুলোতে জোরারোপ করা আছে, সেগুলো ভালো করে বুঝে নেন। ব্যাখ্যাগুলো দেখতে ভুলবেন না। তার আগে সংজ্ঞায় থাকা ৫টি উপাদান পরিষ্কার চোখেই দেখা যাচ্ছে। সংজ্ঞা অংশটুকু পড়তে পড়তে নিম্নলিখিত ৫টি চুরির উপাদানগুলো মিলিয়ে নিন।

১. অন্য কারো দখল হতে
২. তার সম্মতি ব্যতীত
৩. অস্থাবর সম্পত্তি
৪. অসাধুভাবে গ্রহণ করার উদ্দেশ্যে
৫. স্থানান্তর করলে

ধারা ৩৭৮ : চুরি [Theft] : কোনো ব্যক্তি যদি কারো দখল হতে তার সম্মতি ব্যতীত কোনো অস্থাবর সম্পত্তি অসাধুভাবে গ্রহণ করার উদ্দেশ্য নিয়ে উক্ত সম্পত্তি অনুরূপভাবে গ্রহণের জন্য স্থানান্তর করে, তবে উক্ত ব্যক্তি চুরি করেছে বলে গণ্য হবে [Whoever, intending to take dishonestly any movable property out of the possession of any person without that person’s consent, moves that property in order to such taking, is said to commit theft.]

ব্যাখ্যা ১ : কোনো বস্তু যতক্ষণ পর্যন্ত অস্থাবর সম্পত্তি না হওয়া বিধায় মাটির সাথে যুক্ত থাকে, ততক্ষণ পর্যন্ত উহা চুরি করার বস্তু বলে গণ্য হবে না, কিন্তু যে মুহূর্তে উহাকে মাটি হতে বিচ্ছিন্ন করা হয় সে মুহূর্তেই উহা চুরি করার বস্তু হওয়ার যোগ্য গণ্য হবে। [A thing so long as it is attached to the earth, not being moveable property, is not the subject of theft; but it becomes capable of being the subject of theft as soon as it is severed from the earth.]

ব্যাখ্যা ২ : যে কাজ কর্তৃক (মাটি হতে) বিচ্ছিন্নতা সাধন করা হয়, সে কাজ দ্বারাই স্থানান্তর করা হলে তা চুরি হতে পারে। [A moving effected by the same act which effects the severance may be a theft.]

ব্যাখ্যা ৩ : কোনো ব্যক্তি কোনো বস্তুর গতির প্রতিবন্ধক অপসারণ করলে বা উহাকে অপর কোনো বস্তু হতে বিচ্ছিন্ন করলে এবং বাস্তবিকভাবে উহা স্থানান্তর করলে উক্ত বস্তু স্থানান্তর করে বলে পরিগণিত হবে। [A person is said to cause a thing to move by removing an obstacle which prevented it from moving or by separating it from any other thing, as well as by actually moving it.]

ব্যাখ্যা ৪ : কোনো ব্যক্তি যেকোনো উপায়ে কোনো পশুকে হাঁটায়, সে লোক সে পশুকে এবং অনুরূপভাবে সৃষ্ট গতির ফলে উক্ত পশু দ্বারা স্থানান্তরিত প্রত্যেক বস্তুকে স্থানান্তর করে বলে গণ্য হবে। [A person, who by any means causes an animal to move, is said to move that animal, and to move everything which, in consequence of the motion so caused, is moved by that animal.]

ব্যাখ্যা ৫ : সংজ্ঞায় উল্লি­খিত সম্মতি প্রকাশ্য অথবা পরোক্ষ হতে পারে এবং উক্ত সম্মতি দখলকারী ব্যক্তি বা উক্ত উদ্দেশ্য প্রকাশ্য বা পরোক্ষ ক্ষমতাসম্পন্ন ব্যক্তির দ্বারা প্রদত্ত হতে পারে। [The consent mentioned in the definition may be express or implied, and may be given either by the person in possession, or by any person having for that purpose authority either express or implied.]

উদাহরণসমূহ [Illustrations] :
(ক) ক গ-এর জমিতে একটি গাছ কেটে ফেলে। তার উদ্দেশ্য, সে গ-এর জমি হতে গ-এর সম্মতি ব্যতীত গাছটি অসাধুভাবে নিয়ে যাবে। এইক্ষেত্রে যে মুহূর্তে ক গাছটি নিয়ে যাবার উদ্দেশ্যে কেটেছে সে মুহূর্তে চুরি সংঘটিত হয়েছে। [(a) A cuts down a tree on Z’s ground, with the intention of dishonestly taking the tree out of Z’s possession without Z’s consent. Here, as soon as A has severed the tree in order to such taking, he has committed theft.]

(খ) ক তার পকেটে একটি কুকুরের টোপ রাখে এবং তার ফলে গ-এর কুকুর তাকে অনুসরণ করতে থাকে। এক্ষেত্রে ক-এর উদ্দেশ্য যদি হয় গ-এর সম্মতি ব্যতীত গ-এর কুকুরটি অসাধুভাবে নিয়ে যাওয়া তবে যে মুহূর্তে গ-এর কুকুর তাকে অনুসরণ করতে শুরু করেছে সে মূহুর্তে চুরি সংঘটিত হয়েছে। [(b) A puts a bait for dogs in his pocket, and thus induces Z’s dog to follow it. Here, if A’s intention be dishonestly to take the dog out of Z’s possession without Z’s consent, A has committed theft as soon as Z’s dog has begun to follow A.]

(গ) ক একটি সম্পদ ভর্তি বাক্স বহনকারী ষাঁড় দেখতে পায়; সে ষাঁড়টিকে একটি বিশেষ দিকে তাড়াইয়া দিতে থাকে যাতে সে অসাধুভাবে বাক্সটি হস্তগত করতে পারে। যে মুহূর্তে ষাঁড়টি চলতে শুরু করেছে সে মুহূর্তে ক বাক্সটি চুরি করেছে বলে পরিগণিত হবে। [(c) A meets a bullock carrying a box of treasure. He drives the bullock in a certain direction, in order that he may dishonestly take the treasure. As soon as the bullock begins to move, A has committed theft of the treasure.]

(ঘ) ক গ-এর ভৃত্য এবং সে য কর্তৃক গ-এর রেকাবের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব প্রদত্ত হয়েছে। সে গ-এর সম্মতি ব্যতিরেকে অসাধুভাবে রেকাবটি নিয়ে ভেগে যায়। ক চুরি করেছে বলে গণ্য হবে। [(d) A being Z’s servant, and entrusted by Z with the care of Z’s plate, dishonestly runs away with the plate, without Z’s consent. A has committed theft.]

(ঙ) গ বিদেশ যাত্রাকালে তার পেটটি সে ফিরে না আসা পর্যন্ত গুদাম ঘরের রক্ষক ক-এর জিম্মায় রেখে যায়। ক পেটটি জনৈক স্বর্ণকারের কাছে নিয়া বিক্রয় করে। এক্ষেত্রে পেটটি গ-এর দখলে বা অধিকারী ছিলো না। সুতরাং উহা গ-এর অধিকারী হতে নিয়ে যাবার প্রশ্ন উঠে না। কাজে ক চুরি করে নাই যদিও সে যা করেছে তা অপরাধমূলক বিশ্বাস ভঙ্গ হতে পারে। [(e) Z, going on a journey, entrusts his plate to A, the keeper of a warehouse, till Z shall return. A carries the plate to a goldsmith and sells it. Here the plate was not in Z’s possession. It could not therefore be taken out of Z’s possession, and A has not committed theft, though he may have committed criminal breach of trust.]

(চ) গ যে ঘরে থাকে সে ঘরে টেবিলের উপর গ-এর একটি আংটি ক দেখতে পায়, এখানে আংটি গ-এর অধিকারে আছে, এবং ক উহা অসাধুভাবে স্থানান্তর করলে সে চুরি করেছে বলে পরিগণিত হবে। [(f) A finds a ring belonging to Z on a table in the house which Z occupies. Here the ring is in Z’s possession, and if A dishonestly removes it, A commits theft.]

(ছ) ক রাজপথের উপর একটি আংটি দেখতে পায়। আংটি কারো অধিকারে বা দখলে নাই। ক আংটিটি নিয়ে গেলে তা চুরি হবে না যদিও তা অপরাধমূলক সম্পত্তি আত্মসাৎ করে থাকে। [(g) A finds a ring lying on the high-road, not in the possession of any person. A, by taking it, commits no theft, though he may commit criminal misappropriation of property.]

(জ) ক গ-এর বাড়িতে একটি টেবিলের উপর গ-এর একটি আংটি দেখতে পায়। সঙ্গে সঙ্গে আংটিটি হস্তগত করলে তল্ল­াশি হতে পারে ও ধরা পড়তে পারে এই ভয়ে ক তৎক্ষণাৎ আংটিটি না সরায়ে বরং উহা এমন এক স্থানে গোপন করে রাখে যেখান হতে গ-এর পক্ষে উহা খুঁজে বাহির করা এক রকম অসম্ভব হবে। গোপন করে রাখার উদ্দেশ্য এই যে, আংটিটি হারায়ে যাবার কথা যেক্ষেত্রে বিস্মৃত হয়ে যাবে সেক্ষেত্রে সে সুযোগ মত উহা গোপন স্থান হতে এনে বিক্রয় করবে। এক্ষেত্রে ক আংটিটি প্রথম নাড়াচাড়া করার সময় চুরি করেছে বলে পরিগণিত হবে। [(h) A sees a ring belonging to Z lying on a table in Z’s house. Not venturing to misappropriate the ring immediately for fear of search and detection, A hides the ring in a place where it is highly improbable that it will ever be found by Z, with the intention of taking the ring from the hiding place and selling it when the loss is forgotten. Here A, at the time of first moving the ring, commits theft.]

(ঝ) ক তার ঘড়িটি রেগুলেট করে দেওয়ার জন্য জনৈক জুয়েলার গ-এর কাছে দেয়। গ ঘড়িটি তার দোকানে নিয়ে যায়। ক-এর নিকটে জুয়েলারের এমন কোনো পাওনা নাই যার জন্য জুয়েলার আইনসম্মতভাবে ক-এর ঘড়িটি জামানত হিসেবে আটক রাখতে পারে। ক প্রকাশ্যভাবে জুয়েলারের দোকানে প্রবেশ করে বলপূর্বক জুয়েলারের হাত হতে ঘড়িটি ছিনিয়ে নেয় এবং উহা নিয়ে চলে যায়। এখানে ক অপরাধমূলক অনধিকার প্রবেশ ও আক্রমণ করেছে, কেননা সে যা করেছে তা অসাধুভাবে করে নাই। [(i) A delivers his watch to Z, a jeweler, to be regulated. Z carries it to his shop. A, not owing to the jeweler any debt for which the jeweler might lawfully detain the watch as a security, enters the shop openly, takes his watch by force out of Z’s hand, and carries it away. Here A, though he may have committed criminal trespass and assault, has not committed theft, inasmuch as what he did was not done dishonestly.]

(ঞ) গ ক-এর ঘড়ি মেরামত করে এবং সে বাবদ ক-এর কাছে গ-এর কিছু পাওনা হয়। ক-এর কাছে প্রাপ্যের জামানতস্বরূপ গ ক-এর ঘড়িটি রাখে । ক তার ঋণের জামানতস্বরূপ রক্ষিত ঘড়িটি গ-এর নিকট থেকে নিয়ে যায়। ক তার ঋণের জামানতস্বরূপ রক্ষিত সম্পত্তি হতে গ-কে বঞ্চিত করার উদ্দেশ্যে ইহা করে। ক চুরি করেছে বলে পরিগণিত হবে, কেননা সে কাজটি অসাধুভাবে করেছে। [(j) If A owes money to Z for repairing the watch, and if Z retains the watch lawfully as a security for the debt, and A takes the watch out of Z’s possession, with the intention of depriving Z of the property as a security for his debt, he commits theft, inasmuch as he takes it dishonestly.]

(ট) আবার ক গ-এর কাছে তার বাড়িটি বন্ধক রেখে ঋণ গ্রহণের পর ঋণ পরিশোধ না করে গ-এর বিনা সম্মতিতে ঘড়িটি গ-এর দখল হতে নিয়ে যায়। ক চুরি করেছে বলে পরিগণিত হবে, যদিও ঘড়িটি ক-এরই সম্পত্তি কেননা সে অসাধুভাবে ঘড়িটি নিয়ে গিয়েছে। [(k) Again, if A, having pawned his watch to Z, takes it out of Z’s possession without Z’s consent, not having paid what he borrowed on the watch, he commits theft, though the watch is his own property inasmuch as he takes it dishonestly.]

(ঠ) ক গ-এর একটি দ্রব্য গ-এর সম্মতি ছাড়া গ-এর দখল হতে নিয়ে যায়। ক-এর উদ্দেশ্য গ-এর নিকট থেকে তার দ্রব্য প্রত্যপণের পুরস্কারস্বরূপ অর্থ না পাওয়া পর্যন্ত সে উহা রেখে দিবে। এখানে ক অসাধুভাবে দ্রব্যটি নিয়ে গিয়েছে; সুতরাং ক চুরি করেছে বলে পরিগণিত হবে। [(l) A takes an article belonging to Z out of Z’s possession without Z’s consent, with the intention of keeping it until he obtains money from Z as a reward for its restoration. Here A takes dishonestly; A has therefore committed theft.]

(ড) গ-এর সাথে ব-এর হৃদ্যতাপূর্ণ সম্পর্ক। এই সম্পর্কের সুবাদে ক গ-এর অনুপস্থিতিতে গ-এর গ্রন্থাগারে গিয়ে গ-এর প্রকাশ্য অনুমতি ব্যতীত কেবল পড়ার উদ্দেশ্যে এবং পড়ে ফেরত দেওয়ার অভিপ্রায়ে একখানি বই নিয়ে যায়। এখানে ইহা সম্ভব যে, ক মনে করেছে যে, গ-এর এই ব্যবহার করার জন্য তার প্রতি গ-এর অব্যক্ত সম্মতি আছে। যদি ইহাই ক-এর ধারণা হয়ে থাকে, তবে ক চুরি করেছে বলে পরিগণিত হবে না। [(m) A, being on friendly terms with Z, goes into Z’s library in Z’s absence, and takes away a book without Z’s express consent for the purpose merely of reading it, and with the intention of returning it. Here, it is probable that A may have conceived that he had Z’s implied consent to use Z’s book. If this was A’s impression, A has not committed theft.]

(ঢ) ক গ-এর স্ত্রীর কাছে অনুগ্রহ ভিক্ষা করে। গ-এর স্ত্রী তাকে অর্থ, খাদ্য ও কাপড় চোপড় দেয়। ক জানে যে, এসব মহিলার স্বামীর অর্থাৎ গ-এর সম্পত্তি। এখানে ইহা সম্ভব যে, ক মনে করেছে যে, গ-এর স্ত্রী ভিক্ষাদানে ক্ষমতা প্রাপ্ত। যদি ক তাই মনে করে থাকে, তবে সে চুরি করেছে বলে পরিগণিত হবে না। [(n) A asks charity from Z’s wife. She gives A money, food and clothes, which A knows to belong to Z her husband. Here it is probable that A may conceive that Z’s wife is authorized to give away alms. If this was A’s impression, A has not committed theft.]

(ণ) ক গ-এর স্ত্রীর উপপতি। গ-এর স্ত্রী ক-কে মূল্যবান সম্পত্তি প্রদান করে। গ জানে যে, এই মূল্যবান সম্পত্তিটি মহিলার স্বামীর অর্থাৎ গ এর, এবং সম্পত্তিটি এমন ধরনের যে, গ তার স্ত্রীকে উহা প্রদানের ক্ষমতা প্রদান করে নাই। যদি ক সম্পত্তিটি অসাধুভাবে নিয়ে যায়, তবে তা চুরি করেছে বলে পরিগণিত হবে। [(o) A is the paramour of Z’s wife. She gives A valuable property, which A knows to belong to her husband Z, and to be such property as she has not authority from Z to give. If A takes the property dishonestly, he commits theft.]

(ত) ক সরল মনে গ-এর সম্পত্তি তা নিজের সম্পত্তি বলে বিশ্বাস করে গ-এর দখল হতে সে সম্পত্তি নিয়ে যায়। এক্ষেত্রে যেহেতু ক অসাধুভাবে সম্পত্তিটি নিয়ে যায় নাই, সেহেতু সে চুরি করেছে বলে পরিগণিত হবে না। [(p) A, in good faith, believing property belonging to Z to be A’s own property, takes that property out of B’s possession. Here, as A does not take dishonestly, he does not commit theft.]

বলপূর্বক গ্রহণ

ধারা ৩৮৩ : বল প্রয়োগে সম্পত্তি আদায় [Extortion] : কোনো ব্যক্তি যদি ইচ্ছাকৃতভাবে কাউকে তার বা অপর কারো জখম হওয়ার ভয়ে অভিভূত করে এবং তদ্বারা অনুরূপ ভয়ে অভিভূত ব্যক্তিকে কোনো ব্যক্তির কাছে যেকোনো প্রকার দান বা চাঁদা প্রদানের বা কোনো সম্পত্তি, মূল্যবান জামানত বা মূল্যবান জামানতে রূপান্তরযোগ্য কোনো স্বাক্ষরিত বা সিলমোহরযুক্ত বস্তু অর্পণে অসাধুভাবে বাধ্য করে, তবে সে ব্যক্তি বল প্রয়োগে সম্পত্তি আদায় করার অপরাধ করেছে বলে পরিগণিত হয়। [Whoever intentionally puts any person in fear of any injury to that person, or to any other, and thereby dishonestly induces the person so put in fear to give donation or subscription of any kind or to deliver to any person any property or valuable security or anything signed or sealed which may be converted into a valuable security, commits “extortion”.]

উদাহরণসমূহ [Illustrations] :
(ক) ক, গ-কে এইরূপ ভয় দেখায় যে, গ তাকে টাকা না দিলে ক গ-এর বিরুদ্ধে মানহানির কুৎসা রটনা করবে। এইভাবে সে তাকে টাকা দিতে গ-কে বাধ্য করে। ক ‘বল প্রয়োগে সম্পত্তি আদায়’ করেছে বলে পরিগণিত হবে। [(a) A threatens to publish a defamatory libel concerning Z unless Z gives him money. He thus induces Z to give him money. A has committed extortion.]

(খ) ক গ-কে শাসায় যে, গ ক-কে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রদানের অঙ্গীকারমূলে একটি প্রমিসরী নোট স্বাক্ষর ও প্রদান না করলে ক গ-এর শিশু সন্তানকে অন্যায়ভাবে আটক করে রাখবে। গ নোটটি স্বাক্ষর ও প্রদান করে । ক বল প্রয়োগে সম্পত্তি আদায় করেছে বলে পরিগণিত হবে। [(b) A threatens Z that he will keep Z’s child in wrongful confinement unless Z will sign and deliver to A a promissory note binding Z to pay certain money to A. Z signs and delivers the note. A has committed extortion.]

(গ) ক এই মর্মে গ-কে ভয় দেখায় যে গ খ-কে নির্দিষ্ট ফসল না দিলে সাজা লাভ করবে এইরূপ একটি খত লিখে খ-কে না দেয় তবে ক লাঠিয়াল পাঠায়ে গ-এর জমি চাষ করে নিবে। এইরূপ ভয় দেখাইয়া ক অনুরূপ খত স্বাক্ষর করে খ-কে দিতে গ-কে বাধ্য করে। এক্ষেত্রে ক বলপ্রয়োগে সম্পত্তি আদায় করেছে বলে পরিগণিত হবে। [(c) A threatens to send club-men to plough up Z’s field unless Z will sign and deliver to B and bond binding Z under a penalty to deliver certain produce to B, and thereby induces Z to sign and deliver the bond. A has committed extortion.]

(ঘ) ক গ-কে গুরুতর আঘাতের ভয়ে অভিভূত করে, অসাধুভাবে তাকে একটি সাদা কাগজে স্বাক্ষর করে বা উহাতে তার সিলমেহার দিয়ে তা ক-কে অর্পণ করতে বাধ্য করে। গ কাগজটি স্বাক্ষর করে ক-কে প্রদান করে। এক্ষেত্রে যেহেতু কাগজটি একটি মূল্যবান জামানতে রূপান্তরযোগ্য, সেহেতু ক বল প্রয়োগে সম্পত্তি আদায় করেছে বলে পরিগণিত হবে।[(d) A, by putting Z in fear of grievous hurt, dishonestly induces Z to sign or affix his seal to a blank paper and deliver it to A. Z signs and delivers the paper to A. Here, as the paper so signed may be converted into a valuable security, A has committed extortion.]

দস্যুতা

৩৯০ ও ৩৯১ ধারা দুইটি দিয়ে সম্পত্তি সংক্রান্ত আরো দুইটি গুরুত্বপূর্ণ অপরাধ – দস্যুতা ও ডাকাতি সম্পর্কিত [Of Robbery and Dacoity] আলোচনা শুরু হয়েছে। এই দুইটি অপরাধ মূলত আগের দুইটি অপরাধের মাত্রাগত তারতম্যের কারণে আলাদা করে সুনির্দিষ্ট করা হয়েছে। ফলে সহজেই বুঝতে পারবেন যদি আগের দুইটি অপরাধ এর সংজ্ঞা ভালোভাবে পড়ে আসেন।

দস্যুতা সম্পর্কে বলা হচ্ছে – প্রতিটি দস্যুতায় হয় চুরি নয়তো বলপূর্বক সম্পত্তি আদায় – এই দুইটার কোনো না কোনোটি সংঘটিত হয়। আমরা একটু আগেই পড়ে আসলাম যে চুরি করার সময় যদি কাউকে আঘাত দেওয়া হয় বা আটক করা হয় বা মৃত্যু ঘটানো হয় তবে তার শাস্তি বেশি। এই যে, চুরি করার সাথে সাথে আপনি কাউকে আঘাত দিলেন, বা জখম করলেন এটাকেই দস্যুতা বলে।

আবারো বলি, একটা উদাহরণ নেই। ধরুন, আপনার বাসায় একজন চোর একটা মোবাইল চুরি করে নিয়ে গেলো জানালা দিয়ে। আপনি ধরতে পারলেন না। সে পালিয়ে গেলো। এটা এখানেই শেষ হলো। সেই চোরকে আর আপনি ধরতে পারলেন না। এই চুরি ৩৭৮ ধারায় চুরি বলে গণ্য হবে।

কিন্তু এমনও হতে পারে, চোরটি জানালা দিয়ে চুরি করার সময় আপনি দেখে ফেললেন। ত্বরিৎ গতিতে ঘরের ভেতর থেকেই আপনি তার হাতটি ধরে ফেললেন এবং সবাইকে চিৎকার করে ডাকতে থাকলেন। খুব শক্ত করে হাত ধরে রাখার কারণে চোরটি পালাতে পারছিলো না। চোরটি উপায়ন্তর না দেখে আরেক হাত দিয়ে তার অপর হাতে থাকা লুকানো ছুরিটি দিয়ে আপনার হাতে জখম করে ফেললো এবং আপনি তার হাতটি ছেড়ে দিতে বাধ্য হলেন। এরপর আশেপাশের লোকজন আসার আগেই চোরটি মোবাইল সহ পালিয়ে যেতে সক্ষম হলো। এখানে ৩৯০ ধারা মোতাবেক দস্যুতা সংঘটিত হয়েছে। অনুরূপভাবে বলপ্রয়োগে সম্পত্তি আদায়ের সময়ও দস্যুতা সংঘটিত হতে পারে।

ধারা ৩৯০ : দস্যুতা [Robbery] : প্রত্যেক দস্যুতায় হয় চুরি, না হয় বলপূর্বক সম্পত্তি আদায়ের অপরাধ সংঘটিত হয়। [In all robbery there is either theft or extortion.]

যেক্ষেত্রে চুরি দস্যুতা বলে পরিগণিত হবে [When theft is robbery] : চুরি করার উদ্দেশ্যে, অথবা চুরি করতে, কিংবা চুরিতে লব্ধ সম্পত্তি বহন বা বহনের উদ্যোগকালে, অপরাধকারী তদুদ্দেশ্যে ইচ্ছাপূর্বক কোনো ব্যক্তির মৃত্যু ঘটায় বা তাকে আঘাতদান করে তাকে অন্যায় ভাবে আটক করে বা করার উদ্যোগ করে, বা তাকে তাৎক্ষণিক মৃত্যু বা তাৎক্ষণিক আঘাত বা তাৎক্ষণিক অবৈধ আটকের ভীতি প্রদর্শন করে বা করার উদ্যোগ করে, তা হলে উক্ত চুরি হচ্ছে দস্যুতা। [Theft is “robbery” if, in order to the committing of the theft, or in committing the theft, or in carrying away or attempting to carry away property obtained by the theft, the offender, for that end, voluntarily causes or attempts to cause to any person death or hurt or wrongful restraint, or fear of instant death or of instant hurt, or of instant wrongful restraint.]

বলপূর্বক সম্পত্তি আদায় যেক্ষেত্রে দস্যুতা বলে পরিগণিত হবে [When extortion is robbery] : বলপূর্বক সম্পত্তি আদায়ের সময় অপরাধী- যে ব্যক্তিকে ভয়ে বিহবল করা হয়েছে, সে ব্যক্তির বা অন্য কোনো ব্যক্তিকে আশু মৃত্যুর, আশু আঘাতের বা আশু অন্যায় নিয়ন্ত্রণের ভয়ে অভিভূত করে বলপূর্বক সম্পত্তি আদায় করলে, এবং এইভাবে যে ব্যক্তিকে ভয়ে অভিভূত করা হয়েছে, সে ব্যক্তিকে তখন বলপূর্বক আদায়কৃত বস্তুটি অর্পণে বাধ্য করলে, বলপূর্বক সম্পত্তি আদায় ও দস্যুতা বলে পরিগণিত হবে। [Extortion is “robbery” if the offender, at the time of committing the extortion, is in the presence of the person put in fear, and commits the extortion by putting that person in fear of instant death, instant hurt, or of instant wrongful restraint to that person, or to some other person, and, by so putting in fear, induces the person so put in fear then and there to deliver up the thing extorted.]

ব্যাখ্যা : অপরাধী অন্য ব্যক্তিকে আশু মৃত্যুর, আঘাতের বা আশু অন্যায় নিয়ন্ত্রণের ভয়ে অভিভূত করার পক্ষে যথেষ্ট নিকটে থাকলে সে হাজির বলে পরিগণিত হবে। [Explanation.-The offender is said to be present if he is sufficiently near to put the other person in fear of instant death, of instant hurt, or of instant wrongful restraint.]

উদাহরণসমূহ [Illustrations]:
(ক) ক চ-কে জাপটিয়া ধরে চ-এর পরিধেয় কাপড়-চোপড় হতে চ-এর সম্মতি ছাড়াই চ-এর টাকা পয়সা, মণিমুক্তা অসাধুভাবে নিয়ে যায়। এক্ষেত্রে ক চুরি করেছে, এবং এই চুরির সময় ইচ্ছাপূর্বক চ এর উপর অন্যায় নিয়ন্ত্রণ আরোপ করেছে। সুতরাং ক দস্যুতা সংঘটন করেছে বলে পরিগণিত হবে। [(a) A holds Z down, and fraudulently takes Z’s money and jewels from Z’s clothes, without Z’s consent. Here A has committed theft, and, in order to the committing of that theft, has voluntarily caused wrongful restraint to Z. A has therefore committed robbery.]

(খ) ক রাজপথে চ-এর সাক্ষাৎ পেয়ে তাকে একটি পিস্তল দেখায় এবং তার টাকার থলি দাবি করে ফলে চ টাকার থলি সমর্পণ করে। এখানে ক চ-কে আশু আঘাতের ভয় দেখায়ে তার নিকট থেকে তার টাকার থলিটি বলপূর্বক আদায় করে, এবং বলপূর্বক আদায়কালে চ এর কাছে হাজির থাকে। সুতরাং ক দস্যুতা করেছে বলে পরিগণিত হবে।[(b) A meets Z on the high-road, shows a pistol, and demands Z’s purse, Z, in consequence, surrenders his purse. Here A has extorted the purse from Z by putting him in fear of instant hurt, and being at the time of committing the extortion in his presence. A has therefore committed robbery.]

(গ) ক রাজপথে চ ও চ-এর শিশুসন্তান এর সাক্ষাৎ পায়। ক শিশু সন্তানটিকে একটি হাতে নিয়ে ভয় দেখায় যে, চ তার টাকার থলিটি না দিলে সে সন্তানটিকে একটি গভীর খাদে ফেলে দিবে। ফলে চ তার টাকার থলিটি সমপণ করে। এখানে ক শিশু সন্তানটিকে আশু আঘাত করবে বলে চ-কে ভয় দেখায় চ-এর নিকট থেকে তার টাকার থলিটি বলপূর্বক আদায় করে, শিশুসন্তানটিও অকুস্থলে উপস্থিত। সুতরাং ক দস্যুতার অপরাধ করেছে বলে পরিগণিত হবে। [(c) A meets Z and Z’s child on the high-road. A takes the child, and threatens to fling it down a precipice, unless Z deliver his purse. Z, in consequence, delivers his purse. Here A has extorted the purse from Z, by causing Z to be in fear of instant hurt to the child who is there present. A has therefore committed robbery on Z.]

(ঘ) ক চ-এর নিকট থেকে এই বলে সম্পত্তি আদায় করে যে, তোমার শিশুসন্তানটি আমার দলের ব্যক্তিদের হাতে রয়েছে। যদি অচিরে আমাদের কাছে দশ হাজার টাকা পাঠায়ে না দাও, তবে তোমার সন্তানকে মেরে ফেলা হবে। ইহা বলপূর্বক সম্পত্তি আদায়, এবং সে হিসেবে দ-নীয়; কিন্তু ইহা দস্যুতা নয়, যদি না চ-কে তার শিশু পুত্রের আশু মৃত্যুর ভয়ে অভিভূত করা হয়। [(d) A obtains property from Z by saying-”Your child is in the hands of my gang, and will be put to death unless you send us ten thousand taka”. This is extortion, and punishable as such: but it is not robbery, unless Z is put in fear of the instant death of his child.]

ডাকাতি

ধারা ৩৯১ : ডাকাতি [Dacoity] : যদি পাঁচ বা ততোধিক ব্যক্তি মিলিতভাবে দস্যুতা সংঘটন করে বা দস্যুতা সংঘটনের চেষ্টা করে, অথবা যদি কোনো ক্ষেত্রে মিলিতভাবে দস্যুতা সংঘটনের চেষ্টা করে, অথবা যদি কোনো ক্ষেত্রে মিলিতভাবে দস্যুতা সংঘটন প্রচেষ্টারত ব্যক্তির ও অনুরূপ কার্যে বা প্রচেষ্টায় সহায়তাকারী ব্যক্তির মোট সংখ্যা পাঁচ বা ততোধিক হয়, তবে অনুরূপ কাজ সংঘটনকারী বা প্রচেষ্টাকারী বা সহায়তাকারী প্রত্যেক ব্যক্তি ডাকাতি করছে বলে পরিগণিত হবে। [When five or more persons conjointly commit or attempt to commit a robbery, or where the whole number of persons conjointly committing or attempting to commit a robbery, and persons present and aiding such commission or attempt, amount to five or more, every person so committing, attempting or aiding, is said to commit “dacoity”.]

বিগত সালের প্রশ্নসমূহ

প্রশ্ন নং : ৬
১. চুরি, বলপূর্বক আদায়, দস্যুতা ও ডাকাতির সংজ্ঞা কী? চুরি ও বলপূর্বক আদায় এবং দস্যুতা ও ডাকাতির মধ্যে পার্থক্য উদাহরণসহ আলোচনা করুন। [Define theft, extortion, robbery and dacoity. Distinguish theft from extortion and robbery from dacoity with examples.] [বার : ২০১১ + বার ২০০৮, ফেব্রুয়ারি + বার : ২০০৬, ফেব্রুয়ারি + বার : ২০০৩]

প্রশ্ন নং : ৭
টীকা লিখুন : [বার : ২০১০ + বার : ২০০৯]
ক. চুরি
খ. ডাকাতি

প্রশ্ন নং : ৮
কয়েকজন ডাকাত ‘ক’ এর বাড়ীতে ডাকাতি করে, সে সময় ‘ক’ বাধা দিলে ‘খ’ ব্যতীত অন্য ডাকাতগণ ‘ক’ কে হত্যা করতে উদ্যত হয়। ‘খ’ তাদেরকে নিষেধ করে। কিন্তু অন্য ডাকাতগণ শেষ পর্যন্ত ‘ক’ কে হত্যা করে। এক্ষেত্রে ‘খ’ এর শাস্তি হবে কি? সংশ্লিষ্ট বিধান উল্লেখপূর্বক যুক্তিসহ উত্তর দিন। [জুডি. : ২০১০]

প্রশ্ন নং : ৬
চুরি, বলপূর্বক আদায়, দস্যুতা ও ডাকাতির সংজ্ঞা কী? চুরি ও বলপূর্বক আদায় এবং দস্যুতা ও ডাকাতির মধ্যে পার্থক্য উদাহরণসহ আলোচনা করুন। [Define theft, extortion, robbery and dacoity. Distinguish theft from extortion and robbery from dacoity with examples.] [বার : ২০১১ + বার ২০০৮, ফেব্রুয়ারি + বার : ২০০৬, ফেব্রুয়ারি + বার : ২০০৩]

৬ নং প্রশ্নের উত্তর :

চুরির সংজ্ঞা :
দণ্ডবিধির ৩৭৮ ধারায় ‘চুরি’ সংজ্ঞায়িত হয়েছে। এই ধারা অনুসারে কারো দখল থেকে তার সম্মতি ছাড়া কোনো অস্থাবর সম্পত্তি অসাধুভাবে গ্রহণ করার উদ্দেশ্য নিয়ে স্থানান্তর করে তবে তা চুরি [Theft] বলে গণ্য হবে। মাটির সাথে সংযুক্ত কোনো বিষয়বস্তু যখন চুরির উদ্দেশ্যে বিচ্ছিন্ন করা হয় সেটাও চুরির সংজ্ঞায় অন্তর্ভূক্ত। এমনকি কোনো উপায়ে কোনো পশুকে হাঁটিয়ে বা গতি সৃষ্টি করে স্থানান্তর করে চুরির সকল উপাদানসমেত সেটাও চুরির অন্তর্ভূক্ত। Pratula Saikia V State of Assam, 2012, CRLJ মামলায় নিম্নলিখিত উপাদানগুলোর আবশ্যিকতা উল্লেখ করা আছে চুরি সংঘটন প্রসঙ্গে যা নিম্নরূপ-

১. সম্পত্তিটি অসাধুভাবে গ্রহণ
২. সম্পত্তিটি অবশ্যই অস্থাবর সম্পত্তি হতে হবে
৩. এটি অন্যের দখল হতে নিজের দখলে নিতে হবে
৪. অবশ্যই অন্যের সম্মতি ছাড়া নিতে হবে
৫. নিজের দখলে নেবার জন্য স্থানান্তর করতে হবে সম্পত্তিটি।

বলপূর্বক গ্রহণের সংজ্ঞা :
দণ্ডবিধির ৩৮৩ ধারায় ‘বলপূর্বক গ্রহণ’ সংজ্ঞায়িত হয়েছে। এই ধারা অনুসারে ইচ্ছাকৃতভাবে কাউকে জখম হবার ভয়ে (in fear of any injury) অভিভূত করে তার সম্পত্তি, মূল্যবান বা স্বাক্ষরিত জামানত ইত্যাদি অর্পণে অসাধুভাবে বাধ্য করে (dishonestly induces) তবে তা বলপূর্বক গ্রহণ হবে। এর আবশ্যকীয় ২টি উপাদান হলো –

১. ইচ্ছাকৃতভাবে কাউকে জখমের ভয় দেখানো; এবং
২. অসাধুভাবে কোনো সম্পত্তি বা মূলব্যান জামানত অর্পণ করতে বাধ্য করা।

দস্যুতার সংজ্ঞা :
দণ্ডবিধির ৩৯০ ধারা অনুযায়ী দস্যুতার সংজ্ঞায় বলা আছে – প্রত্যেক দস্যুতায় হয় চুরি, নয়তো বলপূর্বক সম্পত্তি আদায়ের অপরাধ অনুষ্ঠিত হয়। প্রকৃতপক্ষে চুরি বা বলপূর্বক গ্রহণ যখন আরো তীব্রতা বা সহিংসতা নিয়ে সংঘটিত হয় তখনই তা দস্যুতা বলে গণ্য হবে। উক্ত চুরি বা বলপূর্বক গ্রহণ কোন কোন ক্ষেত্রে দস্যুতায় পরিণত হবে সে সম্পর্কে নির্দিষ্ট করে বলা আছে খোদ ধারাতেই। চুরির সময়ে বা বলপূর্বক গ্রহণের সময়ে যখন কোনো লোকের মৃত্যু, আঘাত বা অন্যায় নিয়ন্ত্রণ ঘটানোর চেষ্টা করা হয় তখনই তা দস্যুতা হবে।

ডাকাতির সংজ্ঞা :
দণ্ডবিধির ৩৯১ ধারা অনুসারে ডাকাতির সংজ্ঞায় বলা আছে যে, ৫ বা ততোধিক লোক কোনো দস্যুতা সংঘটিত করলে বা তা করার উদ্যোগ নিলেই সেই দস্যুতাকে ডাকাতি বলা হবে। এখানে প্রত্যেকটি লোকই ডাকাতি করেছে বলে গণ্য হবে। অপরাধীর সংখ্যা ছাড়া দস্যুতা ও ডাকাতির মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। কারণ, ডাকাতিতে দস্যুতার সকল উপাদানই বিদ্যমান থাকে।

৩৯৫ ধারায় ডাকাতির সাজা হিসেবে যাবজ্জীবন বা ১০ বছরের সর্বোচ্চ কারাদণ্ডের উল্লেখ আছে। অন্যদিকে, ৩৯৬ ধারায় খুনসহকারে ডাকাতি প্রসঙ্গে বলা আছে যে, ডাকাতদলের কারো কর্তৃক কোনো খুনের ঘটনায় তাদের প্রত্যেকেই সর্বোচ্চ মৃত‌্যুদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারে। এই ধারাটি প্রয়োগের সময় বিধিটির ১৪৯ ধারা মোতাবেক সাধারণ উদ্দেশ্যকে বিবেচনায় নেওয়া হয়।

প্রশ্নে জিজ্ঞাসিত চুরি ও বলপূর্বক গ্রহণের প্রধান পার্থক্যসমূহ নিচে দেয়া হলো :
১. দণ্ডবিধির ৩৭৮ ধারায় চুরির সংজ্ঞা দেয়া আছে, অন্যদিকে বলপূর্বক আদায়ের সংজ্ঞা দেয়া আছে ৩৮৩ ধারায়।

২. চুরির বিষয়বস্তু প্রধানত অস্থাবর সম্পত্তি হবে, পক্ষান্তরে বলপূর্বক সম্পত্তি আদায়ের আওতায় স্থাবর ও অস্থাবর যেকোনো ধরনের সম্পত্তিই হতে পারে।

৩. অন্যের অসম্মতিতে এবং আড়ালে চুরির অপরাধটি সংঘটিত হয়; পক্ষান্তরে, বলপূর্বক আদায়ের সময় অন্যের চোখের সামনেই সম্পত্তি অর্পণে অসাধুভাবে বাধ্য করা (dishonestly induces) হয় ভয়ভীতি দেখিয়ে।

৪. চুরিতে ভয়ভীতি বা শক্তি প্রয়োগ সাধারণভাবে ঘটে না কিন্তু বলপূর্বক আদায়ে ভয়ভীতি বা শক্তিপ্রয়োগ একটি আবশ্যকীয় উপাদান।

৫. চুরির মাধ্যমে সম্পত্তি গ্রহণের জন্য অবশ্যই বস্তুটি স্থানান্তর করতে হবে কিন্তু বলপূর্বক আদায়ে সম্পত্তি স্থানান্তর না করলেও চলে, যেমন – জমির দলিলে স্বাক্ষর নেয়া।

প্রশ্নে জিজ্ঞাসিত দস্যুতা ও ডাকাতির প্রধান পার্থক্যসমূহ নিচে দেয়া হলো :
১. দস্যুতার সংজ্ঞা দেয়া আছে দণ্ডবিধির ৩৯০ ধারায়, অপরদিকে ডাকাতির সংজ্ঞা দেয়া আছে ৩৯১ ধারায়।

২. দস্যুতার ক্ষেত্রে অপরাধীর সর্বোচ্চ সংখ্যা ৪ জন পর্যন্ত হতে পারে, কিন্তু উক্ত দস্যুতা যখন ৫ বা ততোধিক ব্যক্তি কর্তৃক সংঘটিত হবে তখন তা ডাকাতি হবে। দস্যুতা ও ডাকাতির এই সংখ্যাগত পার্থক্যটি একেবারে মৌলিক বা মূল বৈশিষ্ট্যসূচক।

৩. দস্যুতা অপরাধটি চুরি ও বলপূর্বক গ্রহণ থেকে গুরুতর, অন্যদিকে ডাকাতি অপরাধটি, দস্যুতা অপরাধটি থেকে আরো গুরুতর।

৪. দস্যুতা যৌথ অপরাধ হতে পারে আবার নাও পারে বা ১ জনের দ্বারাই সংঘটিত হতে পারে, কিন্তু ডাকাতি আবশ্যিকভাবে ৫ বা ততোধিক লোকের যৌথ অপরাধ হিসেবে বিবেচিত হবে।

৫. দণ্ডবিধির ৩৯২ ধারা অনুযায়ী শুধুমাত্র দস্যুতার শাস্তি সাধারণভাবে ১০ বছর পর্যন্ত হতে পারে, তবে সূর্যাস্তের পরে ও সূর্যোদয়ের আগে অর্থাৎ রাতের বেলায় রাজপথে দস্যুতার শাস্তি সর্বোচ্চ ১৪ বছর পর্যন্ত হতে পারে; অন্যদিকে ৩৯৫ ধারা অনুযায়ী ডাকাতির সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন পর্যন্ত হতে পারে।

এই প্রশ্ন ও উত্তর সম্পর্কে নির্দেশনা :
১. এই প্রশ্নটি কোনো মানসম্মত প্রশ্ন নয় আমাদের বিবেচনামতে। এটাকে আরো ক্রিয়েটিভ করে সাজানো সম্ভব। খুব টিপিক্যাল পার্থক্য টাইপ প্রশ্ন এটা।
২. তবুও এই প্রশ্ন যেহেতু এসেছে, সেজন্য আমাদেরকে এটা পড়তে হচ্ছে। উত্তরটি সহজ আছে। ৩৭৮ থেকে ৪০২ পর্যন্ত ভালো করে ধারাগুলো একবার মূল ধারাগুলো পড়ে নিলে ভালো করবেন।
৩. পরীক্ষার জন্য এই প্রশ্নটিও গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের দেয়া এই নোটে ৬৪৭টি শব্দ আছে এবং এই শব্দসংখ্যা সময়ের বিবেচনায় এবং অ্যাভারেজ শিক্ষার্থীদের জন্য পারফেক্ট।
৪. এই প্রশ্নের উত্তর পরীক্ষার খাতায় পরের দিকে লেখার চেষ্টা করবেন।

প্রশ্ন নং : ৭
টীকা লিখুন : [বার : ২০১০ + বার : ২০০৯]
ক. চুরি
খ. ডাকাতি

৭ নং প্রশ্নের উত্তর

চুরি প্রসঙ্গে সংক্ষিপ্ত টীকা

দণ্ডবিধির ৩৭৮ ধারায় ‘চুরি’ সংজ্ঞায়িত হয়েছে। এই ধারা অনুসারে কারো দখল থেকে তার সম্মতি ছাড়া কোনো অস্থাবর সম্পত্তি অসাধুভাবে গ্রহণ করার উদ্দেশ্য নিয়ে স্থানান্তর করে তবে তা চুরি [Theft] বলে গণ্য হবে। মাটির সাথে সংযুক্ত কোনো বিষয়বস্তু যখন চুরির উদ্দেশ্যে বিচ্ছিন্ন করা হয় সেটাও চুরির সংজ্ঞায় অন্তর্ভূক্ত। এমনকি কোনো উপায়ে কোনো পশুকে হাঁটিয়ে বা গতি সৃষ্টি করে স্থানান্তর করে চুরির সকল উপাদানসমেত সেটাও চুরির অন্তর্ভূক্ত। Pratula Saikia V State of Assam, 2012, CRLJ , মামলায় নিম্নলিখিত উপাদানগুলোর আবশ্যিকতা উল্লেখ করা আছে চুরি সংঘটন প্রসঙ্গে যা নিম্নরূপ-
১. সম্পত্তিটি অসাধুভাবে গ্রহণ
২. সম্পত্তিটি অবশ্যই অস্থাবর সম্পত্তি হতে হবে
৩. এটি অন্যের দখল হতে নিজের দখলে নিতে হবে
৪. অবশ্যই অন্যের সম্মতি ছাড়া নিতে হবে
৫. নিজের দখলে নেবার জন্য স্থানান্তর করতে হবে সম্পত্তিটি।

চুরির সংজ্ঞায় ৫টি ব্যাখ্যা যুক্ত করা আছে, যেগুলোর বর্ণনামতে নিম্নোক্ত বিশেষ ঘটনাবলীতেও চুরি সংঘটিত হতে পারে।
ক. কোনো স্থাবর সম্পত্তি মাটিতে যুক্ত থাকার পরে সেটিকে বিচ্ছিন্ন করা মাত্রই সেটি চুরি করা যেতে পারে, যেমন গাছ কেটে সেটিকে মাটি হতে বিচ্ছিন্ন করা।
খ. কোনো পশুকে ভিন্ন পথে হাটিয়ে বা গতি সৃষ্টি করে কোনো বস্তু স্থানান্তর করাও চুরির অন্তর্ভুক্ত। যেমন, ‘ক’ একটি মালবোঝাই গরুর গাড়ি অসৎ উদ্দেশ্যে এমন দিকে চালিত করল যেন সে সুযোগ বুঝে মালামাল সরাতে পারে। গরুর গাড়ীটি তার দেখানো দিকে চলতে শুরু করবে সাথে সাথে ‘ক’ চুরি করেছে বলে গণ্য হবে।

চুরির সাজা সাধারণভাবে সর্বোচ্চ ৩ বছরের কারাদণ্ড [৩৭৯ ধারামতে]। কিন্তু, বাসগৃহে বা সম্পত্তি হেফাজতের স্থান থেকে চুরি করলে সর্বোচ্চ সাজা ৭ বছরের কারাদণ্ড [৩৮০ ধারামতে ]। অন্যদিকে, কোনো কর্মচারী বা চাকর কর্তৃক মালিকের অধিকারভুক্ত সম্পত্তি চুরি করলে তার সাজাও সর্বোচ্চ ৭ বছরের কারাদণ্ড [৩৮১ ধারামতে]। এছাড়া, চুরির উদ্দেশ্যে মৃত্যু ঘটানো, আঘাত করা বা আটকানোর প্রস্তুতি গ্রহণ করে চুরি সংঘটিত করলে তার সর্বোচ্চ সাজা ১০ বছরের কারাদণ্ড [৩৮২ ধারামতে]।

ডাকাতি প্রসঙ্গে সংক্ষিপ্ত টীকা

দণ্ডবিধির ৩৯১ ধারা অনুসারে ডাকাতির সংজ্ঞায় বলা আছে যে, ৫ বা ততোধিক লোক কোনো দস্যুতা সংঘটিত করলে বা তা করার উদ্যোগ নিলেই সেই দস্যুতাকে ডাকাতি বলা হবে। এখানে প্রত্যেকটি লোকই ডাকাতি করেছে বলে গণ্য হবে।

আমরা জানি, দস্যুতায় হয় চুরি, নয়তো বলপূর্বক গ্রহণের অপরাধটি থাকে এবং এই দুইটি অপরাধের মাত্রাগত তারতম্যতেই দস্যুতা সংঘটিত হয়। অন্যদিকে, দস্যুতাতেই যখন ৫ বা ততোধিক লোক থাকে তখনই সেটি ডাকাতি বলে পরিগণিত হবে। অর্থাৎ, ডাকাতিতেও মূলত হয় চুরি নয়তো বলপূর্বক গ্রহণের অপরাধটি সংঘটিত হতে হয় প্রাথমিকভাবে। কিন্তু, তার তীব্রতা অনেক বেশি থাকে, ফলে এটি এই অপরাধগুলোর ভেতরে গুরুতর অপরাধ। অন্যদিকে, অপরাধীর সংখ্যা ছাড়া দস্যুতা ও ডাকাতির মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। কারণ, ডাকাতিতে দস্যুতার সকল উপাদানই বিদ্যমান থাকে।

৩৯৫ ধারায় ডাকাতির সাজা হিসেবে যাবজ্জীবন বা ১০ বছরের সর্বোচ্চ কারাদণ্ডের উল্লেখ আছে। অন্যদিকে, ৩৯৬ ধারায় খুনসহকারে ডাকাতি প্রসঙ্গে বলা আছে যে, ডাকাতদলের কারো কর্তৃক কোনো খুনের ঘটনায় তাদের প্রত্যেকেই সর্বোচ্চ মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত হতে পারে। এই ধারাটি প্রয়োগের সময় বিধিটির ১৪৯ ধারা মোতাবেক সাধারণ উদ্দেশ্যকে বিবেচনায় নেওয়া হয়। এছাড়াও ৩৯৭ থেকে ৪০২ পর্যন্ত [৪০১ ধারা ব্যতীত] ডাকাতির অন্যান্য ক্ষেত্রে যেমন, ডাকাতির প্রস্তুতি, ডাকাতির উদ্দেশ্যে সমবেত হওয়া ইত্যাদির সাজাসমূহ বর্ণিত আছে।

এই প্রশ্ন ও উত্তর সম্পর্কে নির্দেশনা
১. এই প্রশ্নে চুরির টীকায় প্রায় ৩০০ শব্দ এবং ডাকাতির সংজ্ঞায় প্রায় ২০০ শব্দ আছে।
২. যদি টীকা সংক্রান্ত প্রশ্ন আসে দণ্ডবিধি থেকে তাহলে এই দুইটির মধ্যে একটি, বিশেষত চুরি সংক্রান্ত টীকা আসার সমূহ সম্ভাবনা আছে।

প্রশ্ন নং : ৮
কয়েকজন ডাকাত ‘ক’ এর বাড়ীতে ডাকাতি করে, সে সময় ‘ক’ বাধা দিলে ‘খ’ ব্যতীত অন্য ডাকাতগণ ‘ক’ কে হত্যা করতে উদ্যত হয়। ‘খ’ তাদেরকে নিষেধ করে। কিন্তু অন্য ডাকাতগণ শেষ পর্যন্ত ‘ক’ কে হত্যা করে। এক্ষেত্রে ‘খ’ এর শাস্তি হবে কি? সংশ্লিষ্ট বিধান উল্লেখপূর্বক যুক্তিসহ উত্তর দিন। [জুডি. : ২০১০]

৮ নং প্রশ্নের উত্তর

কয়েকজন ডাকাত ‘ক’ এর বাড়িতে ডাকাতি করতে গেলে ‘ক’ বাঁধা দেয় তাদের ‘খ’ ছাড়া বাকি সব ডাকাতরা ‘ক’ কে মেরে ফেলার জন্য উদ্যত হয়।‘খ’ যদিও তাদেরকে নিষেধ করে তারপরও তারা ‘ক’ কে হত্যা করে। তারা দণ্ডবিধির ৩৯৬ ধারা অনুসারে অপরাধে অভিযুক্ত হবেন। ৩৯৬ ধারাটি এক্ষেত্রে যথেষ্ট হলেও যৌথ দায় নির্ধারণের ক্ষেত্রে দণ্ডবিধির ১৪৯ ধারাটিও বিবেচনায় নেওয়া যেতে পারে। নিচে এ সম্পর্কে আলোকপাত করা হলো।

দণ্ডবিধির ৩৯৬ ধারানুযায়ী, যদি পাঁচ বা ততোধিক ব্যাক্তি যদি একত্রে ডাকাতি করতে গিয়ে তাদের মধ্যে যদি একজনও ডাকাতি করার সময় কাউকে হত্যা করে তবে সেই অপরাধের দায়ে ঐ দলের প্রত্যেককে দোষী করা হবে। যদিও খুন করার পেছনে দলের বাকিদের উদ্দেশ্য বা সহায়তা নাও থেকে থাকে, এ ধরনের অপরাধের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড বা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বা দশ বছর পর্যন্ত সশ্রম কারাদন্ডে দণ্ডিত হতে পারে এবং অর্থদণ্ডও প্রদান করা যেতে পারে, যা কিনা উক্ত ডাকাতদলের প্রত্যেকের জন্যই প্রযোজ্য হবে। বস্তুত, এই ৩৯৬ ধারাটিতে ১৪৯ ধারাটির ‘সাধারণ উদ্দেশ্য’র ধারণাটি একত্র করেই বলা আছে।

দণ্ডবিধির ধারা ১৪৯ অনুসারে, যদি কোনো বেআইনী সমাবেশের কোনো সদস্য (পাঁচ বা ততোধিক ব্যক্তি নিয়ে সমাবেশটি গঠিত হবে) সমাবেশের সাধারণ উদ্দেশ্যে পূরণ করতে গিয়ে কোনো অপরাধ করে তবে ঐ সমাবেশের প্রত্যেকে ঐ অপরাধের জন্য দোষী হবেন। যদিও ঐ অপরাধ করার যে উদ্দেশ্য সবার নাও থাকে তারপরও যে উদ্দেশ্যে অপরাধ করা হলো সেই উদ্দেশ্য পোষণ করলেই এ ধারার অধীন তার যৌথ দায় নির্ধারিত হবে।

প্রশ্নে বর্ণিত ঘটনাটিতে দেখা যায় যে, ডাকাতদলের সাধারণ উদ্দেশ্য ছিলো ডাকাতি করা। ডাকাতিকে সফল করতে গিয়ে এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে উক্ত ডাকাতদলের অন্য সদস্যরা। প্রশ্ন মোতাবেক ‘খ’ যদিও বাধা দিয়েছিলো, তথাপি সেও দোষী হবে ‘ক’ এর খুনের দায়ে। কেননা, খুনটি করা হয়েছিল ডাকাতি সম্পন্ন করার উদ্দেশ্য আর ‘খ’ উক্ত বেআইনী সমাবেশের সদস্য হিসেবে নিজেও ডাকাতির উদ্দেশ্য পোষণ করেছিল। উপরন্তু, সে নিষেধ করে থাকলেও সে ডাকাতদলের সদস্য, যেই ডাকাতদল খুন করেছে একজনকে এবং খ সেখানে নিষেধ করলেও তা এখানে প্রাসঙ্গিক নয়। ফলে, এখানে খ একটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছে যার সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড।

এই প্রশ্ন ও উত্তর সম্পর্কে নির্দেশনা
১. এই উত্তরে ৩০৫টি শব্দ আছে। শব্দের পরিমাণ পারফেক্ট।
২. কোনো প্রশ্নের শেষাংশ হিসেবে আসতে পারে জুডিসিয়ারিতে আসা এই প্রশ্নটি।

লিখিত পরীক্ষার জন্য

জ্যুসি ল অনলাইনে প্রস্তুতি নিন, ঘরে বসেই!!
থাকছে লাইভ ভিডিও ক্লাস
খাতা দেখবেন সহকারী জজগণ :: মুরাদ মোর্শেদ স্যার এর গাইডলাইন আর কাউন্সেলিং

দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে!

বিস্তারিত জানতে ফোন দিন :  01712-908561।